বিশ্ব এইডস দিবস আজ – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাশুক্রবার , ১ ডিসেম্বর ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ

বিশ্ব এইডস দিবস আজ

সম্পাদক
ডিসেম্বর ১, ২০২৩ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

১৯৮৮ সাল থেকে বিশ্বজুড়ে এইডসের কারণে মৃত ব্যক্তিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো ও এইডস আক্রান্তদের প্রতি সমবেদনা জানাতে ১ ডিসেম্বর বিশ্ব এইডস দিবস পালন করা হয়। দিবস উপল‌ক্ষ্যে ২ ডিসেম্বর দেশব‌্যা‌পি প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের নেতৃত্বে এই দিবস পালিত হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুসারে, ২০২০ সালে এইডসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় ৬৫৮ জন। ২০২১ সালে এই সংখ্যা হয় ৭২৯। ২০২২ সালে এইডস রোগী শনাক্ত হয় ৯৪৭ জন। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় চলতি বছর ৩০৩ জন বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে। চলতি বছর নতুন করে যে ১ হাজার ২৫০ জন শনাক্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে সাধারণ মানুষের সংখ্যাই বেশি। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পুরুষ যৌনকর্মীর (সমকামী) ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ।

একসময় দেশে এইচআইভির সংক্রমণের ঝুঁকিতে সবচেয়ে বেশি ছিল শিরায় মাদকগ্রহণকারী, হিজড়া ও যৌনকর্মীরা। বর্তমানে তাদের মধ্যে সংক্রমণ কমে আসছে। আশঙ্কাজনক হারে সংক্রমণ বাড়ছে পুরুষ সমকামীদের মধ্যে। এ ছাড়া ২০২২ সালে দেশের ৯ কারাগারে এইচআইভি সংক্রমণ শনাক্তের কার্যক্রম শুরু হয়। চলতি বছরে ৯টি কারাগার থেকে ৭ জনের এইচআইভি শনাক্ত হয়েছে। তাদের বেশির ভাগই মাদক মামলার আসামি।

এদিকে এইচআইভির সংক্রমণ নিয়ে আরেকটি তথ্য সামনে এসেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এইডস প্রোগ্রামের তথ্যমতে, প্রতিবছর নতুনভাবে শনাক্ত এইডস রোগীদের মধ্যে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ অভিবাসী অথবা তাদের পরিবারের সদস্যরা। মধ্যপ্রাচ্যসহ কয়েকটি দেশে প্রবেশের আগেই এইচআইভি পরীক্ষা বাধ্যতামূলক থাকলেও আক্রান্ত হয়ে দেশে ফেরার ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না। ফলে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে এই রোগের সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব হচ্ছে না।

সিরাজগঞ্জে মাদকে বেড়েছে এইডস
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এইডস/এসটিডি প্রোগ্রামের তথ্য অনুযায়ী, দেশে আনুমানিক ১৪ হাজার ৫০০ এইডস রোগী রয়েছে; যাদের মধ্যে ১৯৮৯ সাল থেকে ২০২২ পর্যন্ত ৯ হাজার ৭০৮ জন শনাক্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ৭ হাজার রোগী ১৩টি হাসপাতালের মাধ্যমে বিনা মূল্যে ওষুধ ও চিকিৎসাসেবা পেয়ে থাকে। সম্প্রতি সিরাজগঞ্জে অস্বাভাবিকভাবে এইডস রোগী পাওয়া যাচ্ছে। গত বছরের আগস্ট থেকে চলতি অক্টোবরের পর্যন্ত এই জেলায় ১৪৪ জন এইডস রোগী শনাক্ত হয়েছে; যাদের মধ্যে ৯৮ শতাংশ সুই-সিরিঞ্জের মাধ্যমে মাদক গ্রহণ করে। জানা গেছে, দীর্ঘ ৭ বছর ধরে এই জেলায় মাদকসেবীদের জন্য কোনো এইচআইভি প্রোগ্রাম ছিল না। এই সময়ের মধ্যে মাদকসেবীরা নিজেদের মধ্যে সুই-সিরিঞ্জ ভাগাভাগি করেছে। ফলে ব্যাপকভাবে এ রোগের সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক প্রশাসন অধ্যাপক শামিউল ইসলাম বলেন, সিরাজগঞ্জে এইচআইভি দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ার কারণ সেখানে কর্মসূচি না থাকা। সম্প্রতি সিরাজগঞ্জে এইডস/এসটিডি প্রোগ্রামের তত্ত্বাবধানে জেলা হাসপাতালে এইডস চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া একটি মেথাডন ক্লিনিক (বিকল্প মাদক চিকিৎসা) স্থাপন করা হয়েছে। এই ক্লিনিকের মাধ্যমে সুই-সিরিঞ্জের পরিবর্তে আক্রান্তদের মুখে মাদক প্রদান করা হয়। এতে সুই-সিরিঞ্জ ব্যবহারের মাত্রা কমে আসে। ফলে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে আর এইচআইভি ছড়ায় না।

এইডস চিকিৎসার আওতা বাড়ছে
বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত নির্দিষ্ট ২৩টি জেলায় হাসপাতাল অথবা এনজিও ক্লিনিকের এইচআইভি পরীক্ষা ও সেবা প্রদান করা হয়। তবে দেশের সব জেলায় এখনো এই সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, দেশব্যাপী এই সেবা থাকলে আরও বেশি এইচআইভি কেস শনাক্ত করা যেত।

এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (এসটিডি, এইডস) ডা. শাহ মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন বলেন, আগে ২৩ জেলায় সংক্রমণ ছিল, তাই সেখানেই অগ্রাধিকার ভিত্তিতেই কার্যক্রম পরিচালিত হতো। আগামী জুলাই থেকে ৬৪ জেলাতেই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। তিনি বলেন, ‘পরীক্ষা বেড়েছে, তাই এ বছর রোগী কিছুটা বাড়তেই পারে। আমাদের সব লজিস্টিকের সরবরাহ স্বাভাবিক আছে। ওষুধেরও কোনো ঘাটতি নেই। আমরা আশাবাদী, ২০৩০-এর মধ্যে আমরা লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হব।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।