৬৮ বছ‌রেও ভুবন মোহনী রেখা – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকারবিবার , ২৫ ডিসেম্বর ২০২২
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

৬৮ বছ‌রেও ভুবন মোহনী রেখা

সম্পাদক
ডিসেম্বর ২৫, ২০২২ ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বি‌নোদন প্রতি‌বেদক ::

১৯৯০ সালে রেখার স্বামী মুকেশ আগারওয়াল রেখার সাদা রঙের যে ওড়নাটি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়েছিলেন, রেখার কাছে সেই সালোয়ার কামিজ সেট ভীষণ আতঙ্কের ছিল। মুম্বাই পুলিশ আলামত হিসেবে ওড়না জব্দ করার পর রেখার সেক্রেটারি ফারজানা রেখাকে ট্রমা থেকে বাঁচাতে সেই ড্রেস গৃহপরিচারিকা সারদাকে দিয়ে দিয়েছিলেন। মুকেশের সাথে প্রেম হবার আগে রেখার জীবনে বহু পুরুষ এসেছিলেন। অতীতে রেখা ছিলেন স্থুল ফিগারের অধিকারী। গায়ের রঙও ছিল শ্যামবর্ণ। তবে কঠোর সাধনা করে সেই রেখা আজ অপরুপা, লাস্যময়ী।রেখার বাবা জেমিনি গনেশন ছিলেন দক্ষিণের নামকরা অভিনেতা। মা পুস্পাবলিও টুকটাক অভিনয় করতেন। তবে রেখার বাবার জীবনে দ্বিতীয় নারী হিসেবে আসেন সুপারহিট অভিনেত্রী সাবিত্রী। যদিও সাবিত্রীকে সামাজিক স্বীকৃতি দেননি জেমিনি গনেশন। রেখার যখন অভিনেত্রী হবার সাধ জাগে তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে ধর্ণা দিতে শুরু করেন। কিন্তু পরিচালক প্রযোজক ও কস্টিউম ডিরেক্টরদের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে তার উপর। ছবিতে কাস্ট করার প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে রেখাকে অনেককিছু বিসর্জন দিতে হয়েছিল। শাওনভাঁদো ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে ছবির অভিনেতা নবীন নিশ্চল তাকে অ্যাবিউজ করেন। এরপর রেখার জীবনে অনেকেই আসেন- বিনোদ মেহরা, বিনোদ খান্না, জীতেন্দ্র, অমিতাভ বচ্চন। তবে অমিতাভের সাথে রেখার নির্ভেজাল প্রেমের সম্পর্ক ছিল। রেখা আজো সিঁথিতে সিঁদুর পরেন ভারতীয় বধূর মত। অনেকেই বলেন, এটা অমিতাভের নামের সিঁদুর। তবে রেখার সেক্রেটারি ফারজানা সবসময় প্রশ্নবিদ্ধ ছিলেন। বলা হয়েছে, ফারজানার সাথে রেখার আপত্তিকর সম্পর্ক ছিল। যদিও রেখা ফারজানাকে তাঁর অন্তরের বোন বলে দাবি করেছেন। বর্তমানে সিলভার স্ক্রিনে সেভাবে দেখা যায়না সোনালি জমানার কিংবদন্তী রেখাকে। তবে অ্যাওয়ার্ড শো’তে নিয়মিত আনাগোনা তাঁর। হাতে সিনেমা না থাকলেও ঠাটবাঁট কিন্তু বিন্দুমাত্র কমেনি রেখার। এখনও ভুবনমোহিনী আন্দাজে নজর কাড়েন তিনি। বিলাসবহুল জীবন যাপন করেন। কিন্তু এখনও কিভাবে দামী শাড়ি, দামী গাড়ির খরচ সামলান রেখা? আয় করেন কিভাবে? আসলে একাধিক জায়গা থেকে ইনকাম করেন রেখা। মুম্বাই এবং দক্ষিণ ভারতে একাধিক বাড়ি রয়েছে রেখার। তার মধ্যে অনেকগুলি বাড়ি ভাড়া দিয়ে দিয়েছেন তিনি। মোটা টাকা ভাড়া পান সেখান থেকে।

এখনও বিজ্ঞাপনের জগতে সক্রিয় রেখা। খুব বেশি অ্যাড ফিল্মে মুখ না দেখালেও, একগুচ্ছ ব্র্যান্ড এনডোর্স করেন তিনি।সেখান থেকেও ভালো আয় করেন। অতীতে রাজনীতির দুনিয়াতেও দেখা গিয়েছিল রেখাকে। রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। ফলে একটা সরকারি ভাতা পান তিনি। এছাড়াও প্রচুর ফিক্সড ডিপোজিট রয়েছে তাঁর। ৪০ বছর ধরে যে ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ইনকাম করেছিলেন তা সঞ্চয় করেছেন। মধ্যবিত্ত ধ্যান ধারণায় বিশ্বাসী তিনি। আয়ের চেয়ে বেশি সঞ্চয়ের নীতিতে বিশ্বাস করেছেন আজীবন। আর সেই কারণেই আজ বিলাসবহুল জীবন কাটাতে পারছেন। তিনি বর্তমানে বান্দ্রার বিলাসবহুল বাড়িতে থাকেন। বাঁশের উঁচু দেওয়াল দিয়ে ঘেরা তাঁর বাড়ি। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় ঘেরা থাকে তাঁর বাড়ি। কাজ ছাড়া বাড়ির বাইরে উঁকি দেননা অভিনেত্রী। নতুন পোশাক, গাড়ি কিনতে দেখা যায় না তাঁকে। তবে প্রায় একশো কাঞ্জিভরম শাড়ি আছে রেখার আলমিরাতে। সোনার গহনা তাঁর খুব বেশি প্রিয়।একসময় সোনার গহনা কিনেছেন দুইহাত ভরে। তাইতো তাঁকে খুব সোনার গয়না পরতে দেখা যায় আজো। কিংবদন্তী অভিনেত্রীর সাজের নিজস্ব ঘরানা রয়েছে। সেই কারণেই পুরনো কাঞ্জিভরম শাড়িতেও দুর্দান্ত লাগে তাঁকে। মার্জিত সাজসজ্জার কারণে ৬৮ বছর বয়সে আজো রেখা চিরতরুণী।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।