ইউক্রেন যুদ্ধ বির‌তির ভোট না দেবার কারণ জানালো বাংলাদেশ – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকারবিবার , ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ

ইউক্রেন যুদ্ধ বির‌তির ভোট না দেবার কারণ জানালো বাংলাদেশ

সম্পাদক
ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৩ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

না‌সের সেব‌রিন :;

শিগগিরই ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে একটি প্রস্তাব গত বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে গৃহীত হয়েছে। এই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে ১৪১টি দেশ। তবে ভোটদানে বিরত ছিল বাংলাদেশ। কেন বাংলাদেশ ভোটদানে বিরত ছিল সে বিষয়ে রোববার (২৬ ফেব্রুয়ারি) আনুষ্ঠানিক ব্যাখ্যা দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এবং জনকূটনীতি বিভাগের মহাপরিচালক সেহেলি সাবরিন বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরে বলেন, প্রস্তাবটিতে (রেজুল্যুশন) সংকট সমাধানের জন্য কূটনীতিক যোগাযোগ ও সংলাপের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি উল্লেখ না থাকার কারণে ভোট দেয়নি বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, বর্তমান সংকটের যেকোনো অর্থবহ ও টেকসই সমাধানের জন্য এর সঙ্গে জড়িত পক্ষগুলোর মধ্যে দৃঢ় কূটনৈতিক যোগাযোগ ও সংলাপের প্রয়োজন। আমাদের বিবেচনা অনুযায়ী, এই গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টটি রেজুল্যুশনে উল্লেখ করা হয়নি। সে কারণে আমরা ভোটদানে বিরত থাকতে বাধ্য হয়েছি।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ‘ইউএন চার্টার প্রিন্সিপ্যাল আনাডারলাইয়িং এ কমপ্রিহেন্সিভ, জাস্ট অ্যান্ড লাস্টিং পিস ইন ইউক্রেন’ শীর্ষক রেজুল্যুশনটি গৃহীত হয়। এর পক্ষে ভোট পড়ে ১৪১টি, বিপক্ষে ৭টি এবং ভোটদানে বিরত ছিল ৩২টি দেশ। দক্ষিণ এশিয়ার ৮টি দেশের মধ্যে ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা ভোটদানে বিরত থাকে। অপরদিকে নেপাল, ভুটান, আফগানিস্তান ও মালদ্বীপ পক্ষে ভোট দেয়।

সেহেলি সাবরিন বলেন, ইউক্রেন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ অব্যাহতভাবে উদ্বিগ্ন। বিশেষ করে বেসামরিক লোকদের প্রাণহানি, সংঘাতপূর্ণ এলাকায় মানবিক পরিস্থিতির অবনতি এবং এর ফলশ্রুতিতে বিশ্বব্যাপী সামাজিক-অর্থনৈতিক অবনতিতে বাংলাদেশ উদ্বিগ্ন। আমরা সংঘাত থামানোর আহ্বান জানাই এবং যেকোনো মূল্যে জাতিসংঘ সনদের উদ্দেশ্য ও মূলনীতিসমূহ রক্ষার বিষয়ে আমাদের প্রতিশ্রুতির বিষয়ে অবিচল রয়েছি।

তিনি বলেন, ইউক্রেন সমন্বিত, ন্যায়ভিত্তিক ও টেকসই শান্তির পথে অগ্রসর হওয়ার জন্য জাতিসংঘের মহাসচিব ও সদস্য রাষ্ট্রসমূহরে পক্ষ থেকে যুদ্ধ বন্ধের আহ্বানের প্রয়োজনীয়তা আমরা দেখি। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আন্তর্জাতিক বিরোধের ক্ষেত্রে শান্তিপূর্ণ সমাধান যেকোনো পরিস্থিতিতে কোনো ধরনের ব্যতিক্রম ছাড়াই সার্বজনীনভাবে সবার জন্য অবশ্যই একভাবে প্রযোজ্য হবে। আর এসব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ শান্তিমুখী পররাষ্ট্রনীতি অবলম্বন করে বলে মন্তব্য করেন মুখপাত্র।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।