রাষ্ট্রায়ত্ব প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলেও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আত্নীকরণ করার আইন আস‌ছে – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাসোমবার , ১৩ মার্চ ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ

রাষ্ট্রায়ত্ব প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলেও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আত্নীকরণ করার আইন আস‌ছে

সম্পাদক
মার্চ ১৩, ২০২৩ ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আহরার স্বপন: সরকারি, স্ব-শাসিত সংস্থা ও রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান কোন কারণে বন্ধ হলেও এসব প্রতিষ্ঠানের ঊদ্বৃত্ত কর্মচারীদের আত্তীকরণের সুযোগ দিয়ে আইন তৈরী করেছে সরকার। আজ সোমবার অনুষ্ঠেয় মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ সংক্রান্ত আইন অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হতে পারে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রণয়ন করা আইনটি ‘সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষ, স্ব-শাসিত সংস্থা ও রাষ্ট্রায়াত্ত প্রতিষ্ঠানের উদ্বৃত্ত কর্মচারী আত্তীকরণ আইন, ২০২৩ নামে অভিহিত করা হয়েছে।

আইনে বলা হয়েছে, যে সব প্রতিষ্ঠান/সংস্থা সরকারের ৫০ ভাগের অধিক অর্থায়নে পরিচালিত হয় এমন ধরনের প্রতিষ্ঠান যেমন, কোম্পানি, ব্যাংক, বীমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান অথবা শিল্প-বাণিজ্য সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলেও এসব প্রতিষ্ঠানের উদ্বৃত্ত কর্মকর্ত/কর্মচারীরা এই সুযোগ পাবেন। একই সঙ্গে সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষ, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা এবং রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের উদ্বৃত্ত কর্মচারীরাও এই সুযোগ পাবেন।

বর্তমানে অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন দপ্তরে আত্তীকরণ প্রক্রিয়া চলাকালীন বিভিন্ন ধরনের আইন ও বিধি নিয়ে অনেক মামলা মোকদ্দমায় জড়িত হয়ে পড়ে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তর। এ ক্ষেত্রে এ আইনেে আওতায় কর্মকর্তা-কর্মচারী আত্তীকরণ প্রক্রিয়াকে নিরচ্ছিন্ন ও রক্ষাকবচ হিসেবে রাখতে, প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, আপাতত বলবৎ অন্য কোন আইন, বিধি, প্রবিধান, উপ-আইন, আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন অন্য কোন দলিল, চুক্তি, অঙ্গীকারনামা, সমঝোতাপত্র বা চাকরির শর্তে ভিন্ন যাই থাকুক না কেন, এই আইন ও এর অধীনে প্রণীত বিধিবিধান প্রাধান্য পাবে। তাছাড়া আইনটি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের অসুবিধা দেখা দিলে তা দূর করতে সরকার এ আইনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সময়ে সময়ে আদেশ জারি করবে।

আইন অনুযায়ী, আইনের আওতাধীন প্রতিষ্ঠানে কর্মচারীদের উদ্বৃত্ত ঘোষণার ৩০ দিনের মধ্যেই সংশ্লিষ্ট সব কাগজপত্র জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে হবে। যে কর্মচারী যে মন্ত্রণালয়ের অধীনে কর্মরত, সেই মন্ত্রণালয় তাদের উদ্বৃত্ত ঘোষণা করবে। উপযুক্ত প্রমাণসহ ওই মন্ত্রণালয়ের সচিবের স্বাক্ষরে তা আত্তীকরণের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠাবে। উদ্বৃত্তকালীন কর্মচারীরা সুপারনিউমারারি পদের বিপরীতে বেতনভাতাদি পাবে। এই সংক্রান্ত যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা উদ্বৃত্ত ঘোষণাকারী মন্ত্রণালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থ বিভাগের সম্মতিতে সম্পন্ন হবে।

উদ্বৃত্ত কর্মচারী আত্তীকরণের আগে মারা গেলে যে হিসাবরক্ষণ অফিস থেকে তিনি সর্বশেষ বেতনভাতা নিয়েছেন, সেই হিসাবরক্ষণ অফিস থেকে চাকরিবিধি অনুযায়ী পেনশন, পারিবারিক পেনশন সুবিধা তুলবেন। উদ্বৃত্তকরণের তারিখ থেকে আত্তীকরণের আগ পর্যন্ত তাদের বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন লাগবে না।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় যে কোনো মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে আত্তীকরণের ক্ষমতা অর্পণ করতে পারবে। আত্তীকৃতদের জ্যেষ্ঠতা, বেতন ও পেনশন নির্ধারণে সরকার নতুন বিধানাবলি প্রণয়ন করবে।

আত্তীকৃত পদের জ্যেষ্ঠতা, বেতন, পেনশন এবং আনুতোষিকের জন্য তার আগের চাকরির সম্পূর্ণ সময়কাল গণনা করা হবে। যে প্রতিষ্ঠানে আত্তীকরণ করা হবে, সেই প্রতিষ্ঠানের বিধি-প্রবিধি অনুযায়ী বেতন, ভাতা ও অবসর সুবিধা পাবেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ বা মনোনয়ন ছাড়া উদ্বৃত্ত কর্মচারীকে আত্তীকরণ করা যাবে না।

৬ ধারাতে বলা হয়েছে, নির্দিষ্ট মেয়াদের জন্য সরকার জনবল নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও উদ্বৃত্ত সরকারি কর্মচারী আত্তীকরণের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

৭ ধারাতে বলা হয়েছে, এ আইনের অধীনে কোনো সরকারি কর্মচারীকে আত্তীকরণের ক্ষেত্রে সরকারি কর্ম কমিশনের সঙ্গে কোনো ধরনের পরামর্শের প্রয়োজন হবে না।

৮ ধারায় বলা হয়েছে, দেশের কোনো আদালত, ট্রাইব্যুনাল বা কোনো কর্তৃপক্ষের কাছে এ আইনের অধীনে সম্পন্ন কোনো কাজ বা জারিকৃত কোনো আদেশের বিরুদ্ধে কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করা যাবে না। সরকার বা কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে এ আইন বা বিধানের অধীন কোনো কিছু করা বা করার অভিপ্রায়ের বিরুদ্ধে কোনো মামলা বা অন্য কোনো আইনগত কার্যধারা দায়ের করা যাবে না।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।