সরকার নিজস্ব সংবিধান প্রবর্তন করে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভকে ধ্বংস করেছে : ফখরুল – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৬ মার্চ ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সরকার নিজস্ব সংবিধান প্রবর্তন করে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভকে ধ্বংস করেছে : ফখরুল

সম্পাদক
মার্চ ১৬, ২০২৩ ৮:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতি‌বেদক ::

ফখরুল বলেন, ‘কিছু বুদ্ধিজীবী শেখ হাসিনার বর্তমান শাসনব্যবস্থার সমর্থনে কথা বলছেন। তারা অত্যন্ত চাটুকারিতায়।

বিএনপির ১০ দফা আন্দোলন ব্যর্থ হলে বাংলাদেশ উত্তর কোরিয়ার মতো কঠোর “কর্তৃত্ববাদী শাসকের” রাষ্ট্রে পরিণত হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ সরকার নিজস্ব বিধি-বিধান, সংবিধান প্রবর্তন করে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করেছে।”

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) “ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ গড়তে ২৭ দফা প্রস্তাবের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা” শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভার আয়োজন করে ১২-দলীয় জোট।

বিএনপির এই নেতা বলেন, “চলমান ১০ দফা আন্দোলন শুধু বিএনপি বা কোনো জোটের আন্দোলন নয়। এই আন্দোলন দেশের ১৮ কোটি মানুষের বেঁচে থাকার সংগ্রাম, তাই একে সফল করতে রাজপথে নামি।”

ফখরুল বলেন, “২০২২ সালের ২২ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া আন্দোলনে ইতোমধ্যে তাদের দলের ১৭ নেতাকর্মী প্রাণ হারিয়েছেন।”

রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “আসুন আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে একটি বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার ও সংসদ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে আরও বেশি মানুষকে সম্পৃক্ত করি।”

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (এসসিবিএ) বার্ষিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি গুরুতর কলঙ্কজনক ঘটনা ঘটেছে এবং সরকার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ব্যবস্থা ভেঙে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন ফখরুল। তিনি বলেন, “দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবীদের আদালতের কর্মকর্তা বলা হয়। যারা ওই আদালতে কাজ করেন বা বিচার ব্যবস্থায় সহযোগিতা করেন তাদের বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠান একটি ঐতিহ্য এবং সবাই একে সম্মান করে। কিন্তু ওই নির্বাচনে গতকাল (বুধবার) যা ঘটেছে তা জাতি ও দেশের বিচার ব্যবস্থার জন্য সবচেয়ে কলঙ্কজনক ও কলঙ্কজনক ঘটনা।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে আইনজীবীদের পরিচালনায় সুষ্ঠু ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে এসসিবিএ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু তারা (আ.লীগ) গতকাল (বুধবার) এই ব্যবস্থা ভেঙ্গেছে। তারা জাতীয় প্রেসক্লাবের নির্বাচনী ব্যবস্থাও ভেঙ্গেছে। এর মানে আওয়ামী লীগের এখন একমাত্র লক্ষ্য হলো রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভগুলোকে পুরোপুরি ভেঙ্গে ফেলা… তারা ইতোমধ্যেই এটা ভেঙ্গেছে। তারা নিজেদের নিয়ম-কানুন, সংবিধান প্রবর্তন করেছে।”

যমুনা নদীর প্রস্থ ১৫ কিলোমিটার থেকে কমিয়ে ৬.৫ কিলোমিটার করার পরিকল্পনার জন্য সরকারের সমালোচনা করেন ফখরুল। তিনি বলেন, “যমুনা নদী আমাদের দেশে হাজার বছর ধরে প্রবাহিত। নদীগুলো বন্যা ও জলাবদ্ধতার মতো সমস্যা সৃষ্টি করে…কিন্তু এই নদীকে সংকুচিত করার ধারণা এবং এ বিষয়ে ১২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্পকে আপনি কীভাবে সমর্থন করবেন? সরকার সম্পূর্ণ নির্লজ্জ হয়ে এ ধরনের প্রকল্প নিচ্ছে।”

ফখরুল আক্ষেপ করে বলেন, “কিছু বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবী আওয়ামী লীগ ও তার সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বর্তমান শাসনব্যবস্থার সমর্থনে কথা বলছেন। তারা অত্যন্ত চাটুকারিতায় লিপ্ত। আমরা কী ধরনের দেশের জন্য যুদ্ধ করেছি (১৯৭১ সালে) তা ভেবে আমার খারাপ লাগে। এখন আমরা চিৎকার করছি যে আমরা এমন দেশ চাইনি।”

তিনি বলেন, “গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, সাম্য, জনগণের মর্যাদা এবং তাদের ভোটের অধিকার এবং আইনের শাসন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছেন।”

বিএনপি নেতা আরও বলেন, “নিত্যপ্রয়োজনীয় সব পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে মানুষ খুবই কঠিন সময় পার করছে।”

তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগের শরীরের রসায়নে সন্ত্রাস ও চুরি দুটি জিনিস আছে। তারা জোর করে সবকিছু করতে চায় এবং প্রতিটি ক্ষেত্রে চুরি করতে চায়।”

ফখরুল অভিযোগ করেন, “তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ গোয়েবলসের মতো বলেছেন, বিএনপি স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে চাইছে এবং অগ্নিসংযোগের প্রস্তুতি নিচ্ছে। আপনিই (আওয়ামী লীগ) দেশে অগ্নিসংযোগের সূচনা করেছেন… আপনিই জামায়াতে ইসলামী ও জাতীয় পার্টির সঙ্গে ১৭৩ দিন হরতাল চালিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিধান এনেছিলেন।”

বিএনপির এই নেতা বলেন, “বাংলাদেশের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা জরুরি। কারণ, এখন যারা ক্ষমতায় আছে তারা সভ্য নয়। তারা নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।