আওয়ামী লীগই অগ্নি সন্ত্রাসের হোতা : পাল্টা অ‌ভিযোগ ফখরু‌লের – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাবুধবার , ১৯ এপ্রিল ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আওয়ামী লীগই অগ্নি সন্ত্রাসের হোতা : পাল্টা অ‌ভিযোগ ফখরু‌লের

সম্পাদক
এপ্রিল ১৯, ২০২৩ ৭:৩০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক:: 

আওয়ামী লীগই অগ্নি সন্ত্রাসের হোতা বলে পাল্টা অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ‘বিএনপি অগ্নি সন্ত্রাস শুরু করছে’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমন অভিযোগের জবাবে আজ বুধবার দুপুরে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব এই পাল্টা অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, অগ্নি সন্ত্রাসের জন্মদাতা হচ্ছে আওয়ামী লীগ। আমরা কখনো অগ্নি সন্ত্রাস করেনি। এই সন্ত্রাস তো তাদের(আওয়ামী লীগ) জিনের মধ্যে আছে। আমি বার বার একটা কথা বলি যে, তাদের দুটো ব্যাপার- একটা সন্ত্রাস একটা দুর্নীতি। এখান থেকে তারা বেরুতে পারেন না।

রাজধানীর নিউ সুপার মার্কেটের আগুন লাগার ঘটনা তুলে ধরে ফখরুল বলেন, এই বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত হচ্ছেই না। ফায়ার বিগ্রেডও বলেছে, এটা শট সার্কিটে হতে পারে। সবগুলোতে খেয়াল করে দেখবেন। এখানে যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত তারা কথা বলার আগেই প্রধানমন্ত্রী বলে দিলেন এটাতে বিএনপি জড়িত আছে কিনা দেখতে হবে। এখন উনারা (আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক) বলছেন, অগ্নি সন্ত্রাস করে বিএনপি। আরে অগ্নি সন্ত্রাসের মূল হোতা আওয়ামী লীগ।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের সঙ্গে বিএনপি নেতাদের বৈঠকের বিষয়ে ক্ষমতাসীনরা বিদেশীদের কাছে ধরনা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করছে। এই বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বিদেশীদের কাছে আমরা যাই না। তারা আমাদেরকে ইনভাইট করেছে বলে আমি গিয়েছি। প্রত্যেকবার যতবার আমরা গেছি তাদের আমন্ত্রণে গেছি। আমাদের চাইতে ১শ ভাগ বেশি তারা (আওয়ামী লীগ) গেছে, এখনো যাচ্ছে। সেইদিনও ওবায়দুল কাদের সাহেবে তাদের টিম নিয়ে আমেরিকান অ্যাম্বেসেডরের কাছে গিয়েছেন। তাহলে সেটা কি? ধরনা কে দিচ্ছে? কোটি কোটি মিলিয়ন ডলার বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেছে। সব খানে গিয়ে তারা বলছে, এবারকার নির্বাচন আমাদের করতে দাও, এভাবে করতে দাও যাতে আমাদের প্রতিপক্ষ কেউ না থাকে, যাতে করে আমরা ২০১৪ সাল এবং ২০১৮ সালের মতো নির্বাচন করতে পারি।

দলের অবস্থান তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমাদের একটাই কথা। জনগণ তাদের আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না । তাদের উচিৎ সরকার থেকে পদত্যাগ করা, সংসদ বিলুপ্ত করা এবং একটা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে নতুন নির্বাচন কমিশন করে নির্বাচন করা এটা মেনে নেয়া। এটাই হচ্ছে একমাত্র পথ।

সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে নির্বাচনের পূর্বেই বিএনপিকে নেতৃত্ব শূন্য করার জন্য মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, এই পরিকল্পনা  মধ্যে আছে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে আটকে রাখা। তারা ইতিমধ্যে এই প্রক্রিয়া শুরু করেছে। হাবিবুল ইসলাম হাবিব একজন ছাত্র নেতা ছিলেন, নব্বইয়ের গণঅভ্যুত্থানে তিনি ভালো ভূমিকা রেখেছেন। যে কারণে তিনি দেশের মানুষের বিশেষ করে তার এলাকার মানুষের কাছে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা। গত ৩৫ বছরে এদেশে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে যতগুলো আন্দোলন হয়েছে, প্রত্যেকটা আন্দোলনে তিনি একজন সম্মুখ সারির নেতা ছিলেন। এই ধরনের একজন রাজনৈতিক নেতাকে ২১ বছর পরে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমরা এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

২০০১ সালের ৩০ আগস্ট সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় শেখ হাসিনার গাড়িবহরের হামলার ঘটনার ১২ বছর পর জব্দ তালিকা প্রণয়নের নিয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ১২ বছর পরে জব্দ তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এক যুগ পরে? ওই সময়ের মধ্যে ওই মহাসড়ক সংস্কারও হয়েছে কয়েকবার। এরপর উনারা আলামত কিভাবে পেলেন?  কিভাবে এটা সত্যতার প্রমাণ করছেন? মহামান্য আদালত তা কিভাবে গ্রহণ করলেন এটা কারো কাছে বোধগম্য নয়। এসব করে বিচার ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আস্থা পুরোপুরি চলে যাচ্ছে

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।