ইইউ ও ব্রিটিশ পর্যবেক্ষকদের স্বাগত জানানো হবে : বৃ‌টিশ হাই ক‌মিশনার‌কে প্রধানমন্ত্রী – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২০ এপ্রিল ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ

ইইউ ও ব্রিটিশ পর্যবেক্ষকদের স্বাগত জানানো হবে : বৃ‌টিশ হাই ক‌মিশনার‌কে প্রধানমন্ত্রী

সম্পাদক
এপ্রিল ২০, ২০২৩ ১১:৪৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আগামী সাধারণ নির্বাচনে  ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এবং যুক্তরাজ্যের পর্যবেক্ষকদের আমরা স্বাগত জানাবো।’

যুক্তরাজ্যের বিদায়ী হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে বৃহস্প‌তিবার দেখা করতে যান। সে সময় তাকে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

বিদায়ী ব্রিটিশ হাইকমিশনারের সঙ্গে আলোচনাকালে সরকারপ্রধান বলেন, ‘বাংলাদেশে গণতন্ত্র অব্যাহত থাকায় চরম দারিদ্র্যের হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশ এবং দারিদ্র্যের হার ১৮ দশমিক ৭ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।’

কিছু স্থানীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষকের আলাদা এজেন্ডা রয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করেছি।’

বৈঠকে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হয়। ব্রিটিশ হাইকমিশনার জানান, তার দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে অর্থনৈতিক অংশীদারত্ব ও উড়োজাহাজ চলাচল খাতে সহযোগিতা আরো জোরদার করতে চায়।

তিনি আরো জানান, তার দেশ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় গত মার্চে বিভিন্ন দেশের মধ্যে সই হওয়া চুক্তির সঙ্গে সংগতি রেখে বাংলাদেশের সঙ্গে সহযোগিতা জোরদার করতে চায়।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের স্থায়ী প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি বছর রোহিঙ্গা জনসংখ্যায় ৪০ হাজার নবজাতক শিশু যুক্ত হচ্ছে। বিষয়টি বাংলাদেশের জন্য বিশাল বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক এবং তাদের অবশ্যই নিজ দেশে ফেরত যেতে হবে।’

রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে তার দেশ বাংলাদেশকে সমর্থন করে।

আলোচনায় শেখ হাসিনা অবিলম্বে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধ করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। গোটা বিশ্ব এ যুদ্ধের কারণে ভুগছে বলে জোর দিয়ে উল্লেখ করেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা সবসময় যেকোনো যুদ্ধের বিপক্ষে।’

বাংলাদেশ তার সব দ্বিপক্ষীয় সমস্যার সমাধান করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাশিয়া ও ইউক্রেন দ্বিপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে তাদের সমস্যা সমাধান করতে পারে।’

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।