প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি: নেত্রকোণায় বিএনপি অফিসের আসবাবে আগুন – দৈনিক মুক্ত বাংলা
ঢাকাসোমবার , ২২ মে ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি-ব্যবসা
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরও
  6. ইসলাম ও ধর্ম
  7. কোভিট-১৯
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলা
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. বিনোদন
  13. মি‌ডিয়া
  14. মু‌ক্তিযুদ্ধ
  15. যোগা‌যোগ
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি: নেত্রকোণায় বিএনপি অফিসের আসবাবে আগুন

সম্পাদক
মে ২২, ২০২৩ ৩:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতি‌বেদক ::

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদের হুমকির প্রতিবাদে নেত্রকোণায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা।

সোমবার দুপুরে এ মিছিল থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আরিফা জেসমিন নাহীনের বাসায় ইট-পাটকেল ছোড়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া জেলা শহরের মেছুয়া বাজার এলাকায় বিএনপির কার্যালয়ের আসবাবপত্র বের করে আগুনও ধরিয়ে দিয়েছেন বিক্ষুব্ধরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান লিটনের নেতৃত্বে শহরের ছোট বাজার দলীয় কার্যালয় থেকে এই বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

পরে ছোট বাজার এলাকায় আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান লিটন, আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক ভজন সরকার, জেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দেওয়ান রনি, জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা শামসুন্নাহার বিউটি, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ বজলুর রশিদ, জেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি গাজী মোসাদ্দেক হোসেন রতনসহ অনেকে।

বক্তারা রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদের বক্তব্যকে ‘রাজনৈতিক শিষ্টাচারবহির্ভূত ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ’ দাবি করে তাকে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীকে হুমকির ঘটনায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান লিটন বাদী হয়ে সোমবার দুপুরে আদালতে একটি মামলাও দায়ের করেছেন।

আওয়ামী লীগের মিছিল থেকে দলীয় কার্যালয়ের আসবাবপত্রে আগুন দেয়ার অভিযোগ তুলে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা. আনোয়ারুল হক বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দলীয় শ্লোগান দিয়ে কিছু নেতা-কর্মী বিএনপি অফিসের তালা ভেঙে ভেতরের আসবাবপত্র বের করে কার্যালয়ের সামনে আগুন দেয়। এসময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফা জেসমিন নাহীনের বাসা ভাঙচুর করে তারা।’

প্রাণনাশের হুমকির পাওয়ার অভিযোগ করে আরিফা জেসমিন নাহীন বলেন, ‘আওয়ামী লীগের মিছিল থেকে জেলা বিএনপি অফিসে হামলা করা হয় এবং চেয়ার-টেবিলে অগ্নিসংযোগ করা হয়। পাশাপাশি মোক্তারপাড়ায় আমার বাসভবনে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এসময় আমাকে মেরে ফেলার হুমকিও দেয়া হয়।’

কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এটিএম আব্দুল বারী ড্যানী বলেন, ‘প্রতিটি পার্টির নিরাপদ আশ্রয়স্থল হচ্ছে দলীয় কার্যালয়। নেত্রকোণা জেলা বিএনপির কার্যালয় বন্ধ ছিল। এ কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের নেতারা চেয়ার-টেবিল ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করে সেগুলোতে আগুন লাগিয়েছে। সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতা আরিফা জেসমিন নাহীনের বাসায় ইট-পাটকেল ছুড়ে ভাঙচুর ও হত্যার হুমকি দিয়েছে, যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’

নেত্রকোণা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান লিটন বলেন, ‘রাজশাহীতে বিএনপির এক নেতা রাজনৈতিক শিষ্টাচারবহির্ভূত ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। তার এই বক্তব্য বিএনপির মনোভাব স্পষ্ট করে দিয়েছে। আবারও নেত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এর দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে আসামি করে আমি নিজে বাদী হয়ে নেত্রকোণার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়েছেন।’

বিএনপির কার্যালয়ের চেয়ার-টেবিলে আগুন দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে শামসুর রহমান লিটন বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কোনো নেতা-কর্মী বিএনপি অফিসে আগুন দেননি। শুনেছি নেত্রকোণা জেলা বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল চলছে। হয়তো বিএনপির নাশতকতাকারী ‍দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়েছে।’

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।